বিসিএস ভাইভাঃ স্মাইলিং ফেস, আই কন্টাক্ট ও পোশাক নির্বাচনটা গুরুত্বপূর্ণ

সবার আগে আপডেট পেতে পেইজে লাইক দিন

মোহাম্মদ ফয়েজ উদ্দীন। ৩৪তম বিসিএস পুলিশ ক্যাডারে বাংলাদেশ পুলিশের হেডকোয়ার্টাসে সহকারী পুলিশ সুপার হিসেবে কর্মরত। এম এম মুজাহিদ উদ্দীন তার সাথে বিসিএস ভাইভা পরামর্শ নিয়ে আলাপ করেছেন। যেকোন ভাইভা হলো একটি মনস্তাত্বিক খেলা। এই খেলায় নিজকে পণ্ডিত ব্যক্তি হিসেবে উপস্থাপন করে নয় বরং ভাইভা বোর্ডকে কনভিন্স করে জিততে হয়। ‘কনভিন্স’ করতে হলে চাই আত্মবিশ্বাস এবং বিনয়। ভাইভা বোর্ড কোন পণ্ডিতকে চায় না, চায় একজন যোগ্য ও বিশ্বস্ত লোককে। বিসিএস ভাইভা হয় সাধারণত ক্যাডার পছন্দের উপর। তবে এর ব্যতিক্রমও ঘটে। বর্তমান বাজারে বিসিএস ভাইভার অভিজ্ঞতা নিয়ে বই পাওয়া যায়। যে কোন একটি বই সংগ্রহ করে প্রশ্নের ধরণ দেখে নিন। ইন্টারনেটের এই যুগে ভাইভার প্রস্তুতি নেওয়াটা অনেক সহজ হয়। কেননা প্রয়োজনীয় যে কোন বিষয়ে গুগলের সহায়তা নেওয়া যায়।

গাইড ও ইন্টারনেট দেখে প্রথম তিনটি ক্যাডার পছন্দের উপর সাধারণ বিষয় গুলো দেখে নিন। এগুলো দেখবেন শুধু নিজের আত্মবিশ্বাস বাড়ানোর জন্য। বিসিএস ভাইভায় কিছু কমন প্রশ্ন পাওয়া যায়। তবে এই কমন প্রশ্নগুলোর উত্তর একটু ব্যতিক্রম, গুছানো এবং সাবলীল হলে খুব সহজেই বোর্ডকে নিজের আয়ত্ত্বে আনতে পারবেন। সে জন্য প্রচলিত গাইড বইয়ের উত্তর মুখস্ত করা থেকে বিরত থাকুন। ইন্টারনেটের সহায়তা নিন এবং কিছু প্রশ্নের উত্তরের ক্ষেত্রে আপনি যা ভাবছেন সেটিই গুছিয়ে বলুন এতে বোর্ডের কাছের আপনার গ্রহণযোগ্যতা বাড়বে। প্রশ্নগুলো হতে পারে কেন বিসিএস দিচ্ছেন? ফার্স্ট চয়েজ এটা কেন? আপনার একাডেমিক সাবজেক্ট আপনার ক্যাডারে কিভাবে ভূমিকা রাখতে পারে?

নিজের সম্পর্কে বলুন, নিজ জেলা, বিখ্যাত ব্যক্তি, আপনার এলাকার মুক্তিযুদ্ধ ও মুক্তিযোদ্ধা ইত্যাদি। সাম্প্রতিক বিষয়গুলো আয়ত্ত্বে রাখা ভাল, কারণ এগুলো প্রশ্নকর্তার মাথায়ও বেশি আসে। দেশের অর্থনীতি, আন্তর্জাতিক রাজনীতি ও অর্থনীতি, কূটনীতি, খেলাধুলা বিশেষ করে টেনিস, ক্লাব ফুটবল, ক্রিকেট ইত্যাদি বিষয়গুলোর দিকে নজর রাখুন। দেশের এবং আন্তর্জাতিক মানচিত্রের উপর দখল থাকা নিঃসন্দেহে আপনাকে অনেক বেশি সাবলীল করে তুলবে। এছাড়াও নিজের একাডেমিক বিষয় সম্পর্কে সম্যক ধারণা, সংবিধান, কমপক্ষে ৩টি পত্রিকা পড়া (১টি ইংরেজি, ২টি বাংলা) আপনার প্রস্তুতিকে শাণিত করে তুলবে। পাশাপাশি বিটিভি’র নিউজ আপনাকে সরকারের কার্যক্রম সম্পর্কে যথেষ্ট ধারণা দিবে।

বিবিসি নিউজ দিবে আপনাকে দেশীয় ও আন্তর্জানিতক ঘটনা বহুল তথ্য। ইউটিউব থেকে কিছু আইসিএস ভাইভার ভিডিও দেখে নিতে পারেন, প্রস্তুতি নিতে এগুলো আপনাকে সহায়তা করবে। সর্বশেষ কিছু সাধারণ বিষয় মনে রাখুন। ভাইভা বোর্ডে অনুমতি নিয়ে প্রবেশ করুন ও সালাম দিয়ে বসুন। স্মাইলিং ফেস খুব গুরুত্বপূর্ণ। আই কন্টাক্ট, পোশাক ইত্যাদিতে আপনার ব্যক্তিত্ব ফুটে উঠবে। তাই এই দিকটায় বিশেষ খেয়াল রাখুন। মনে রাখবেন, কোন যুক্তি-তর্কে যাবেন না। বরং বিনয়ের সাথে আপনার উত্তর দিন। সব পাড়তে হবে এমনটা নয়। আপনি কেমন করে না জানা বিষয়কে প্রকাশ করেন সেটাও দেখার বিষয়। ভাইভার প্রস্তুতিতে শেষ বলে কিছু নেই। নিয়মিত চর্চা করুন, আত্মবিশ্বাসী হোন, সৃষ্টিকর্তাকে স্মরণ রাখুন এবং সব কিছু মেনে নেওয়ার মানসিকতা তৈরি করুন। সকলের জন্য শুভ কামনা।

      আমাদের গ্রুপে জয়েন হলে আপনি উপকৃত হবেন আশা করি

আরও পড়ুন

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *