যে প্রস্তুতি না নিয়ে ভাইভা বোর্ডে যাবেন না

সবার আগে আপডেট পেতে পেইজে লাইক দিন

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের সাবেক শিক্ষার্থী মোহাম্মদ কামাল হোসেন। ৩৬তম বিসিএস পরিসংখ্যান ক্যাডারে প্রথম স্থান অধিকার করেছেন। বর্তমানে তিনি ক্যাডার সার্ভিসে কর্মরত রয়েছেন। এম এম মুজাহিদ তার সঙ্গে বিসিএস ভাইভার পরামর্শ নিয়ে কথা বলেছেন।

ভাইভায় আমন্ত্রণ পাওয়ার জন্য শুরুতেই চাকরি প্রত্যাশীদের অভিনন্দন জানিয়ে তিনি বলেন, ভাইভায় আমন্ত্রণ পাওয়ার অর্থ হলো আপনার চাকরি পাওয়ার যোগ্যতা মোটামুটি প্রমাণিত। এবার আপনার সাথে কথা বলে আপনার ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি, আপনার সদাচরণ, বিনয়ীভাব, দেশপ্রেম, ব্যক্তিত্ব এবং সর্বোপরি সিভিল সার্ভিসের জন্য আপনাকে তৈরী করা যাবে ইত্যাদি ব্যাপারে নিশ্চিত হওয়ার পালা।

এতদূর পার হয়ে এসেছেন, আর মাত্র একটা ধাপ! এই ধাপটি সুন্দরভাবে অতিক্রম করতে পারলেই এতদিনের কষ্টগুলো যথার্থ। তাই একটি সুন্দর ভাইভার প্রত্যাশায় আপনাদের সাথে কিছু বিষয় শেয়ার করছি। বিশ্বাস করি, প্রতিটি শব্দই আপনাদের উপকারে আসবে।

চলুন মূল আলোচনায় যাওয়া যাক। বিসিএস ভাইভা শুধু প্রশ্ন আর উত্তরের মধ্যে সীমাবদ্ধ নয়। ভাইভা বোর্ডের সব প্রশ্নের উত্তর পারা বা কোন প্রশ্নের উত্তর না পারার সাথে সফলতা বা ব্যর্থতা সেভাবে জড়িত নয়। বোর্ডের বিজ্ঞ চেয়ারম্যান ও সদস্যগণ আপনার অনেকগুলো বিষয় বিবেচনা করবেন।

তাই বিনয়ী, ইতিবাচক, বুদ্ধিভিত্তিক ও যৌক্তিক থাকার চেষ্টা করুন। কথাবার্তা বা আচরণে হঠকারী হলে বোর্ড বিরক্ত হবে। যেহেতু সব প্রশ্নের উত্তর পারা জরুরী নয়, সেহেতু অস্থির হওয়ার কিছু নাই। মুদ্রাদোষ এড়িয়ে চলুন, স্থির থাকুন এবং নিজের স্বাভাবিকতা বজায় রাখুন, ব্যস। ধারাবাহিক আলোচনার দ্বিতীয় পর্ব।

      আমাদের গ্রুপে জয়েন হলে আপনি উপকৃত হবেন আশা করি

৪. বঙ্গবন্ধু ও মুক্তিযুদ্ধের উপর ভালোকরে পড়াশোনা করে যেতে হবে। মুক্তিযুদ্ধের সর্বাধিনায়ক, প্রধান সেনাপতি ও বীরশ্রেষ্ঠদের জীবনী ও সমাধী, মাশরুর বিমান ঘাঁটি, কয়েকজন বিখ্যাত বীর উত্তমের জীবনী, খেতাবপ্রাপ্ত নারী মুক্তিযোদ্ধা, বীরাঙ্গনা, কোন বাহিনীর কতজন খেতাব প্রাপ্ত, বিদেশী মুক্তিযোদ্ধা, মেডিসন স্কয়ার গার্ডেন, মুুক্তিযুদ্ধ সম্মাননা ইত্যাদি নিয়ে পড়াশোনা করুন।

স্বাধীনতার ঘোষণা ও সম্প্রচার, বঙ্গবন্ধুকে গ্রেফতার, মিয়ান আলী কারাগার, অপারেশন বিগ বার্ড, অপারশেন সার্চলাইট, মুক্তিবাহিনী গঠন, স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র, মুজিবনগর সরকার, শপথ অনুষ্ঠান, শত্রুমুক্ত এলাকা, সেক্টর ও সেক্টরের সদর দপ্তর এবং প্রশিক্ষণ কেন্দ্র, সেক্টর কমান্ডার ও তাঁর সহযোদ্ধাগণ, ফোর্সসমূহ, অনিয়মিত বাহিনী, প্রথম সশস্ত্র প্রতিরোধ, এমভি সোয়াত জাহাজ, অপারেশন ক্র্যাকপ্লাটুন, অপারেশন জেকপট, যৌথ বাহিনী গঠন, পাকিস্তান কর্তৃক ভারত আক্রমণ, বুদ্ধিজীবী হত্যা, কয়েকজন শহীদ বুদ্ধিজীবীর নাম, বদ্ধভূমি, আলবদর, আল শামস, রাজাকার, শান্তি কমিটি, যুদ্ধাপরাধের বিচার ইত্যাদি বিষয় ভালোভাবে জানা থাকা চাই।

পাকিস্তানের আত্মসমর্পণ, আত্মসমর্পণ অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের প্রতিনিধি, বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, পরাশক্তিগুলোর তৎকালীন রাষ্ট্র প্রধান ও সরকার প্রধান এবং তাঁদের ভূমিকা, সপ্তম নৌবহর, জাতিসংঘ ও UNHCR এবং বিশ্বমিডিয়ার ভূমিকা, প্রতিবেশী ভারত ও চীনের ভূমিকা ইত্যাদি জানতে হবে।

অসমাপ্ত আত্মজীবনী, কারাগারের রোজনামচা, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক কয়েকটি বিখ্যাত বই বা তার রিভিউ পড়ুন। মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক দুই একটি কবিতা, গান (সুরকার-গীতিকার-শিল্পীর নামসহ), নাটক, সিনেমা-পরিচালক, উপন্যাস, স্থাপত্য, ভাস্কর্য-ভাস্কর সম্পর্কে জানুন।

বঙ্গবন্ধুর বাল্যকাল, পড়াশোনা, আন্দোলন, রাজনীতি, জেল জীবন, বিখ্যাত বক্তব্যসমূহ, ৭ মার্চের ভাষণ ও স্বীকৃতি, জাতিসংঘে ভাষণ, বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে বিশ্বনেতাদের সম্পর্ক, বঙ্গবন্ধুর উত্তরসূরীগণ, ১৫ আগস্ট, ঘাতকদের বিচার ও পলায়ন, জেল হত্যা, জাতীয় চারনেতা ও তাঁদের উত্তরসূরীগণের বর্তমান ইত্যাদি সম্পর্কে জানতে হবে।

৫. গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধানের রচনা ও গ্রহণ, কমিটির সদস্যগণ, সংবিধানের চেতনা, প্রস্তাবনা (মুখস্ত), চার মূলনীতি ইত্যাদি সম্পর্কে জানতে হবে।সংবিধানের প্রথমভাগ, দ্বিতীয়ভাগ ও তৃতীয়ভাগ এবং গুরুত্বপূর্ণ অনুচ্ছেদসমূহ পড়তে হবে। যেমন: ৪৮, ৪৯, ৫২, ৫৩, ৫৫, ৫৭, ৫৮, ৫৯, ৬০, ৬৩, ৬৪, ৬৫, ৬৬, ৬৭, ৭০, ৭২, ৭৩, ৭৬, ৭৭, ৮১, ৮৪, ৮৭, ৯১, ৯৩, ৯৪, ৯৫, ১০১, ১০২, ১০৩, ১০৬, ১০৮, ১১৭, ১১৮, ১১৯, ১২১, ১২২, ১২৩, ১২৭, ১৩০, ১৩৭, ১৩৮, ১৩৯, ১৪০, ১৪১, ১৪১(ক), ১৪১(খ), ১৪১(গ), ১৪২, ১৪৫, ১৪৫(ক), ১৪৬, ১৪৮, ১৫৩ প্রভৃতি অনুচ্ছেদ।

 

আরও পড়ুন

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *