লঞ্চে থাকা ছেলেকে না পেয়ে পাগল হয়ে ঘুরছেন মা

রাজধানীর শ্যামবা’জার এলাকা সংল’গ্ন বুড়ি’গঙ্গা নদীতে অ’র্ধশতা’ধিক যাত্রী নিয়ে লঞ্চ’ডুবির ঘটনা’য় এখন পর্যন্ত ৩০ জনের ম’র’দে’হ উ’দ্ধা’র করা হয়েছে। এ ঘটনা’য় এখনও নিখোঁ’জ র’য়েছেন অনেকে। তাদের হন্যে হয়ে খুঁজ’ছেন স্বজনরা। এমনই একজন মা পপি বেগম। লঞ্চ’ডুবি’তে নিখোঁজ ছে’লের জন্য পাগল হয়ে ঘুর’ছেন তিনি। তার কা’ন্নায় আকাশ-বাতাস ভারি হয়ে উ’ঠেছে। জানা গেছে, দুর্ঘ’টনার পর ছেলের নিখোঁজের খবর পেয়ে ছু’টে আসেন পপি বেগম। এসে এদিকে-সেদিক ছু’টাছটি

সবার আগে আপডেট পেতে পেইজে লাইক দিন

করতে থাকেন। এর আগে সকাল ১০টায় এ ল’ঞ্চডু’বির ঘটনা ঘটে। বেলা দেড়টা পর্য’ন্ত ৩০ জনের ম’র’দে’হ উদ্ধা’র’ করা হয়েছে। এদের মধ্যে বেশ ক’য়েকজন নারী ও শিশু রয়েছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত উদ্ধা’র তৎপরতা চা’লাচ্ছে’ ফায়ার সার্ভিস, কোস্ট’গার্ড ও সেনাবাহি’নী। স্থানীয় সূত্রে জা’না যায়, ঢাকা-চাঁদপুর রুটের ময়ূর-২ নামের একটি লঞ্চে’র ধা’ক্কায় কমপক্ষে ৫০ যাত্রী নিয়ে ঢাকা-মু’ন্সিগঞ্জ রুটের ম’র্নিং বার্ড লঞ্চটি ডুবে যায়। লঞ্চটি থেকে ক’য়ে’কজন যা’ত্রী সাঁ’তরে পা’ড়ে উ’ঠলেও বেশ

কয়ে’কজন নি’খোঁ’জ ছিলেন। পরে নি’খোঁজ’দের উ’দ্ধা’রে ফায়ার সা’র্ভিসে’র ডুবু’রি দল উ’দ্ধার অ’ভিযান শু’রু করে। স্থানীয়রা আরও জা’নান, মুন্সি’গঞ্জ থেকে ছেড়ে আ’সা দুই’তলা ম’র্নিং বার্ড লঞ্চ’টি সদরঘাট কা’ঠপট্টি ঘাটে ভেড়া’নোর আগ মুহূ’র্তে চাঁদপু’র’গামী ময়ূর-২ লঞ্চ’টি ধা’ক্কা দেয়। এতে সঙ্গে সঙ্গে তুলনা”মূলক ছোট মর্নিং বা’র্ড লঞ্চ’টি ডুবে যায়।

 আমাদের বিসিএস গ্রুপে যোগ দিন