কাতারের চারটি স্টেডিয়াম সামলানোর দায়িত্ব পেলেন বাঙালি যুবক লিয়াজুদ্দিন

বেকার জীবনবেকার জীবন
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  09:20 AM, 04 December 2022

নদিয়ার করিমপুর জায়গাটি আ’কারে ছোট। একটি জনপদ যেমন হয় তেমনই। প্রতিবেশী রাষ্ট্র বাংলাদেশের সীমান্তব’র্তী এই জায়গাটির অধিবাসীদের গর্বে আর পা পড়ছে না। হবে নাই বা কেন?করিমপুর এর ছেলে লিয়াজুদ্দিন মন্ডল একার হাতে সাম’লাচ্ছে কাতার বিশ্বকাপের চার চারটি স্টেডিয়াম। তার দা’য়িত্বে রয়েছে, খলিফা ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়াম, লুসাইল আইকনিক স্টেডিয়াম, আল বায়াত স্টেডিয়াম আর এডুকেশন সিটি স্টেডিয়াম।

লিয়াজুদ্দিন তার বাহিনী নিয়ে এই স্টে’ডিয়ামগুলির তত্ত্বাবধানে ব্য’স্ত। অথচ সাধারণ এক র’ঙের মি’স্ত্রির কাজ নিয়ে মুম্বাই হয়ে কাতারে পাড়ি দিয়েছিলেন লিয়াজুদ্দিন। সেখানে যোগ দেন অল হায়াৎ কো’ম্পানিতে।অ’ল্পদিনেই তার কর্মকুশলতা চোখে পড়ে যায় অল হায়াৎ এর মালিক মোহাম্মদ ইউসুফ অল বিন এর। তিনি এই বা’ঙালি যুবককে আরও বড় দা’য়িত্ব দেন। অবশেষে কাতার বিশ্বকাপ এসে যায়।

অল হায়াৎ স্টেডিয়াম দেখাশোনার দা’য়িত্ব পায়। ইউসুফ অল বিন অনেক দেশি বিদেশী তরুণের মধ্যে বেছে নেন করিমপুরের যুবক লিয়াজুদ্দিনকে। প্রথমে দুটি, পরে মোট চারটি স্টেডিয়ামের দা’য়িত্ব অর্পিত হয় তার কাঁ’ধে।এরপর মেসি, রোনাল্ডোদের মাঠ সাম’লানোর দায়িত্বে এই বাঙালি যুবক। রঙের মি’স্ত্রি থেকে যার উত্তরণ স্টেডিয়াম কেয়ারটেকার প’দে। করিমপুরের লোকজন গর্ব অ’নুভব করবে না!

আপনার মতামত লিখুন :