গুচ্ছভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিলেন দুই হাত ও এক পা বিহীন অদম্য তামান্না

 বেকার জীবন
প্রকাশিত :  09:36 PM. 30 July 2022

যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (যবিপ্রবি) অনুষ্ঠিত গুচ্ছভর্তি পরীক্ষায় অংশ নিয়েছেন দুই হাত ও এক পা বিহীন বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন শিক্ষার্থী তামান্না আক্তার নুরা। শনিবার (৩০ জুলাই) গুচ্ছভুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর ‘এ’ ইউনিটের স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা দেন তিনি।

এদিন গুচ্ছভুক্ত অন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো যবিপ্রবিতে স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ পরীক্ষার প্রথম দিন ‘এ’ ইউনিটে যবিপ্রবিতে আসন পড়ে ৩ হাজার ৮৬১ জন শিক্ষার্থীর। এর মধ্যে যবিপ্রবিতে ৯৬ শতাংশের বেশি শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন বলে পরীক্ষা সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

যশোরের ঝিকরগাছার বাঁকড়া এলাকার দুই হাত ও এক পা বিহীন বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন শিক্ষার্থী তামান্না যবিপ্রবির বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব একাডেমিক ভবনের কেন্দ্রীয় গ্যালারিতে ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেন। তিনিসহ আরও দুজন বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন ভর্তি পরীক্ষার্থীর জন্য বিশেষ ব্যবস্থা করা হয়।

এর আগে এক পায়ে লিখে এইচএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেয়ে এলাকায় সাড়া ফেলেন তামান্না। তাকে নিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রতিবেদন প্রকাশিত হলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তার ছোট বোন শেখ রেহানা তামান্নাকে ফোন করে খোঁজ-খবর নেন।

জিএসটিভুক্ত সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষার ওয়েবসাইটে জানানো হয়, শনিবার ‘এ’ ইউনিটে বিজ্ঞান বিভাগ থেকে পাস করা শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। আগামী ১৩ আগস্ট ‘বি’ ইউনিটে মানবিক ও ২০ আগস্ট ‘সি’ ইউনিটে বাণিজ্য বিভাগ থেকে পাস করা শিক্ষার্থীদের দুপুর ১২টা-১টা পর্যন্ত ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্নের বিষয়ে যবিপ্রবির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেন বলেন, সারাদেশ থেকে আমরা খবর পেয়েছি, গুচ্ছ পদ্ধতির পরীক্ষাটি অত্যন্ত সুষ্ঠু ও নির্বিঘ্নে সম্পন্ন হয়েছে। যবিপ্রবি কেন্দ্রে দুজন বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন এবং একজন গুরুতর অসুস্থ পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেছেন। আমরা তাদের প্রয়োজনীয় সুবিধা নিশ্চিত করেছি।

তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের দুর্দশা লাঘবে গুচ্ছ পরীক্ষা পদ্ধতি একটি সফল পদ্ধতি হিসেবে প্রমাণিত হয়েছে। ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার জন্য তিনি যবিপ্রবির সব শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ জানান।

যবিপ্রবির জিএসটিভুক্ত সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষার আহ্বায়ক কমিটি থেকে জানানো হয়, যবিপ্রবির তিনটি ভবনে গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এর মধ্যে একটি ভবনে অবৈধভাবে মুঠোফোন রাখার দায়ে একজন ভর্তি পরীক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়।

আপনার মতামত লিখুন :

এই বিভাগের সর্বশেষ