পড়াশোনায় কমজোরি, স্কুল থেকে কাটা যায় নাম, জয়েন্টে সেই ছেলের পার্সেন্টাইল ৯৯.৯৩

বেকার জীবনবেকার জীবন
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  08:15 AM, 13 August 2022

দীপক প্রজাপতি। মধ্যপ্রদেশের ভোপালের বাসিন্দা। নিম্নমধ্যবিত্ত পরিবার থেকে উঠে আসা দীপক পড়াশোনায় খুব একটা ভাল ছিলেন না।পড়াশোনায় কমজোরি ছিলেন। সেই কারণে প্রাথমিক স্কুল থেকে তাঁর নাম কাটা গিয়েছিল। কিন্তু সেই ঘটনাই যেন ‘শাপে বর’ হয়েছিল দীপকের জীবনে। সেই ছেলেই জয়েন্টে ৯৯.৯৩ পার্সেন্টাইল পেয়ে সকলকে চমকে দিয়েছেন।

দীপক প্রজাপতি। মধ্যপ্রদেশের ভোপালের বাসিন্দা। নিম্নমধ্যবিত্ত পরিবার থেকে উঠে আসা দীপক পড়াশোনায় খুব একটা ভাল ছিলেন না। কমজোরি হওয়ার কারণে এক সময় তাঁর নাম স্কুল থেকে কেটে দেওয়া হয়েছিল। শুধু তাই নয়, তখন এমনও বলা হয়েছিল যে, এই ছেলে জীবনে উন্নতি করতে পারবে না। কিন্তু সেই সব নিন্দকদের ভুল প্রমাণ করে ছাড়লেন দীপক।

বাবা রাম ইকবাল প্রজাপতি ঝালাই মিস্ত্রি। মা গৃহবধূ। স্কুল থেকে ছেলের নাম কাটা যাওয়া দীপকের মা-বাবা দুশ্চিন্তায় পড়েছিলেন। যদিও পরে তাঁকে স্থানীয় একটি স্কুলে ভর্তি করানো হয়। স্কুলে নাম কাটা যাওয়ার ঘটনা দীপকের মনে গভীর দাগ কেটেছিল। আর সেই ঘটনাই তাঁর জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দেয়। তার পর থেকে আর ফিরে তাকাতে হয়নি।

কঠোর পরিশ্রম আর অধ্যবসায় তাঁর সমস্ত খামতিকে ঢেকে দিয়েছিল। প্রতি ক্লাসে ভাল ফল করতে শুরু করেন দীপক। দশমের বোর্ড পরীক্ষায় ৯৬ শতাংশ পেয়ে উত্তীর্ণ হন। দ্বাদশের বোর্ড পরীক্ষায় ৯২ শতাংশের বেশি পেয়েছেন। দীপকের ইচ্ছা ছিল ইঞ্জিনিয়ারিং পড়ার। কিন্তু বাবার সামান্য আয়। তাই নিজের ইচ্ছার কথা বাবা-মাকে জানাতে একটু ইতস্ততই করছিলেন। তবে অভিভাবকদের নজর এড়ায়নি ছেলের মনের ইচ্ছা। জিজ্ঞাসা করতে বাবা-মাকে তিনি জানান, জয়েন্ট বসতে চান। কোচিংয়ের জন্য ছেলেকে ইনদওরে পাঠান তাঁরা। জয়েন্ট পরীক্ষার ফল বেরোতেই দেখা যায়, দীপক ৯৯.৯৩ পার্সেন্টাইল পেয়েছেন।

আপনার মতামত লিখুন :