যমুনা পাড়ি ছাগলের ওজন ৩ মণ, খামারে সফল রতন-মাসুমা দম্পতি!

 বেকার জীবন
প্রকাশিত :  09:15 PM. 7 October 2021

তোঁতাপাড়ি, হরিয়ানা, যমুনাপাড়ি ছাড়াও বয়ার ও ব্ল্যাক বেঙ্গলসহ নানা জাতের ছাগল পালনে ব্যাপক সফলতা পাওয়ার পাশাপাশি সফল হয়েছেন গাইবান্ধার পলাশবাড়ী পৌর শহরের হরিনমারী গ্রামের রতন-মাসুমা দম্পতি।

তাদের খামারে ৩ মণ ওজনের যমুনা পাড়ি জাতের ছাগল ছাড়াও অন্যান্য জাতের ছাগল রয়েছে। যমুনা পাড়ি জাতের প্রায় চার ফুট উচ্চতার এই বিশালকার ছাগলটির বর্তমান বাজারমূল্য ১ লাখ ২০ হাজার টাকা।

জানা যায়, ২০১৮ সালে ছোট ভাই রহমাতুল্লাহ আল আমিন লিটুর অর্থায়নে দেশি-বিদেশি ছাগল পালনের মাধ্যমে এই খামারের কার্যক্রম শুরু হয়। প্রথমে মাত্র ১৭ টি ছাগল দিয়ে শুরু করলেও বর্তমানে প্রায় ৫০ টি ছাগল রয়েছে।ভবিষ্যতে ৫০০ টি ছাগলের একটি খামারে রূপান্তরের স্বপ্ন নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছেন বলে জানিয়েছেন রতন-মাসুমা দম্পতি।

রেজাউল করিম রতন জানান, এক বিঘা জমি লিজ নিয়ে মাত্র ১৭ টি ছাগল দিয়ে খামারটি শুরু করি। বছরে দু’বার ছগাওলের বাচ্চা পাচ্ছি। বর্তমানে ছাগলের খাবার-চিকিৎসা বাবদ দৈনিক গড়ে এক হাজার থেকে ১২০০ টাকা খরচ হচ্ছে।

তিনি আরও বলেন, যমুনা পাড়ি এই ছাগলটি মূলত প্রজননের কাজে ব্যবহৃত হয়। প্রজনন কাজে ব্যবহারের মাধ্যমে প্রতিদিন অনেক টাকা আয় হয়। এর দৈনিক খাদ্য তালিকায় রয়েছে এক কেজি ছোলা, ভুষি আধা কেজি ও পাঁচ কেজি কাচা ঘাস।

পলাশবাড়ী উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. আলতাফ হোসেন জানান, নিয়মিত ওই দম্পতির ছাগলের খামার পরিদর্শনের পাশাপাশি প্রয়োজনীয় পরামর্শ-চিকিৎসাসেবা দেওয়া হচ্ছে।তথ্যসূত্রঃ আধুনিক কৃষি খামার

 আমাদের বিসিএস গ্রুপে যোগ দিন

আপনার মতামত লিখুন :

এই বিভাগের সর্বশেষ