রান্নাঘরে টিকটিকির উপদ্রব, তাড়ান এই সহজ ঘরোয়া উপায়ে

বেকার জীবনবেকার জীবন
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  05:07 PM, 20 June 2022

আপনার বাড়িতে কি ছোট, অবাঞ্ছিত অতিথি টিকটিকি আছে? যার কালো/বাদামী মল রান্নাঘরের নানা কোনে মাঝে মাঝেই দেখা যায়। রান্নাঘরের দেয়ালে তাদের হামাগুড়ি দেওয়াও দেখে আপনি বিরক্ত । হাজার কিছু করেও এদের বাড়ি ছাড়া করতে পারেন না অনেকি।

যাইহোক, টিকটিকি বাড়িতে কীটপতঙ্গ কমাতে সাহায্য করে ঠিকই। তবে রান্নাঘরে বা বাড়ির নানা জায়গায় এদের সংখ্যা দিনদিন বাড়ে বই কমতে চায় না। আপনার আমার বাড়িকে ধর্মশালা ভেবে এদের উপদ্রব বেড়েই চলে। তাই রান্নাঘর সহ বাড়ি থেকে এদের তাড়ানো প্রয়োজন হয়ে পড়ে।

রান্নাঘরে টিকটিকির উপদ্রব থেকে ঘরোয়া প্রতিকারঃ
টিকটিকি বাড়ির পোকামাকড় কমাতে সহায়ক প্রমাণিত, তবে কখনও কখনও তাদের ঘর থেকে বিশেষ করে রান্নাঘর থেকে সরিয়ে ফেলা প্রয়োজন। ঘরে বসেই আপনি টিকটিকি থেকে মুক্তি পেতে পারেন খুব সহজে।

১. ডিমের খোসাকে কাজে লাগান টিকটিকি তাড়াতেঃ
বাড়িতে ডিমের খোসা রাখুন। এটি টিকটিকি তাড়ানোর একটি সস্তা এবং কার্যকর উপায়। টিকটিকি ডিমের খোসাকে “শিকারী” বলে মনে করে। ডিমের খোসা ঘর বা রান্নাঘরে এমন জায়গায় রাখুন, যেখান থেকে টিকটিকি আসে। ডিমের খোসা পুরো ভাঙবেন না, অর্ধেক করে একসাথে রাখুন। একটা ডিমের দুই টুকরো করে এক জায়গায় এমন ভাবে রাখুন যাতে টিকটিকি তার সাথে ধাক্কা খায়, তাহলে টিকটিকি নিজেই ভয়ে পালিয়ে যাবে। ডিমের খোসা তাজা রাখতে, প্রতি তিন থেকে চার সপ্তাহে বদলে দিন।

২. বাড়িতে পেপার স্প্রে তৈরি করুনঃ
বাড়ির আশেপাশে পেপার স্প্রে রাখুন। মানুষ যেমন পেপার স্প্রে এর জ্বালা সহ্য করতে পারে না, তেমনি টিকটিকিও তা সহ্য করতে পারে না। একটি স্প্রে বোতলে সামান্য জল এবং গোলমরিচ মেশান। বাড়ির চারপাশে ছিটিয়ে দিন। বিশেষ করে যেখানে টিকটিকি বাস করে, যেমন ফ্রিজ এবং সোফার পিছনে, দেয়ালে এবং যে কোনও জায়গায় টিকটিকি দেখা যায়।

এর জন্য লাল লঙ্কার গুঁড়োও ব্যবহার করতে পারেন। আপনি গোলমরিচ স্প্রে এর পরিবর্তে ট্যাবাসকো (Tabasco) সস ব্যবহার করতে পারেন।

সতর্কতাঃ

বাড়িতে এটির অতিরিক্ত স্প্রে করা আপনারও ক্ষতি করতে পারে, তাই এটি ব্যবহার করার সময় সতর্ক থাকুন। কারণ এর গন্ধ খুবই ঝাঁঝালো। তাই স্প্রে করার সম্য মুখে মাস্ক পড়ে করবেন।

৩. ফ্লাইপেপার ব্যবহার করুনঃ
রান্নাঘর থেকে টিকটিকি তাড়াতে ফ্লাইপেপার ব্যবহার করুন। টিকটিকি সাধারণত যেসব পোকামাকড় শিকার করে তারা আলোর প্রতি আকৃষ্ট হয়, তাই এই ধরনের জায়গায় টিকটিকি দেখা যায়। যদি ফ্লাইপেপার একটি উজ্জ্বল স্থানের কাছাকাছি রাখেন, তাহলে টিকটিকি সহ পোকামাকড় ধরতে পারেন। রান্নাঘরের বাল্বের কাছে ফ্লাই পেপার রাখুন। চাইলে জানালা বা দরজার চারপাশে আঠালো বোর্ড, ফ্লাইপেপারও লাগাতে পারেন। এটা রাখার কয়েক ঘণ্টা পরেই দেখবেন এতে টিকটিকি আটকে আছে। বাইরের নোংরা ডাস্টবিনে ফেলে দিন পেপার সহ।

৪. কীটনাশক ট্যাবলেট টিকটিকির আসা যাওয়ার পথে রাখুনঃ
কীটনাশক ট্যাবলেট টিকটিকিকে ঘর ছাড়া করতে কার্যকর। টিকটিকি রান্নাঘর থেকে দূরে রাখতে গ্যাস, ফ্রিজ এবং সিঙ্কের নীচে কিছু ট্যাবলেট রাখুন। তবে বাড়িতে বাচ্চা বা কুকুর, বিড়াল থাকলে তাদের নাগালের বাইরে রাখবেন। খেয়াল রাখবেন। কীটনাশক ট্যাবলেট যেখানে রাখবেন সেখানেই টিকটিকিকে পড়ে থাকতে দেখবেন কিছুক্ষণ পর।

৫. কফি এবং তামাক দিয়ে টিকটিকির বিষ তৈরি করুনঃ
কফি ও তামাকের বড়ি তৈরি করুন। কিছু কফি নিন এবং তামাকের গুঁড়ো নিন। এবার হাতের সাহায্যে এর থেকে কয়েকটি বল তৈরি করুন এবং টুথপিকের ডগায় লাগান। এখন এমন জায়গায় রাখুন যেখানে টিকটিকি থাকে বা দেখা যায়। এটি খেয়ে টিকটিকি মারা যাবে। টিকটিকির জন্য এটা বিষ।

৬. টিকটিকির আসা যাওয়ার জায়গায় রসুন রাখুনঃ
রসুনের তীব্র গন্ধ টিকটিকি একদম সহ্য করতে পারে না। টিকটিকি এর গন্ধ থেকে পালিয়ে যায়। রান্নাঘরেও এমন জায়গায় রসুন রাখুন, যেখান থেকে টিকটিকি আসে এবং যায়। রসুন সেখানে থাকলে টিকটিকি সেই জায়গা থেকে একেবারের মত চলে যাবে।

৭. পেঁয়াজের স্লাইস টিকটিকি তাড়াতে ব্যবহার করুনঃ
কয়েকটি পেঁয়াজ স্লাইস করুন। পেঁয়াজ এমন একটি জিনিস যা থেকে টিকটিকি পালিয়ে যায়। পেঁয়াজকে দুই টুকরো করে কেটে টিকটিকি লুকানোর জায়গায় রাখুন বা টিকটিকির পথে রাখুন। দেখবেন বেটা আর আপনার বাড়ি ভুলেও আসবে না।

৮. ন্যাপথলিন রাখুনঃ
ন্যাপথলিনের উগ্র গন্ধ মানুষেরই বিরক্তিকর লাগে, আর ভাবুন টিকটিকির কি অবস্থা হবে! খবরেও কাগজে ন্যাপথলিনের বল মুড়ে রাখুন যেসব জায়গায় টিকটিকি আসে। এর গন্ধ একবার পেলে সেই জায়গা ত্যাগ করবে তারা। এভাবে কয়েকদিন করলে আপনার বাড়ি থেকে একেবারের মত বিদায় নেবে টিকটিকি বাবাজী।

ন্যাপথলিন
টিকটিকিকে ঘরে ঢুকতে বাধা দিন এইভাবেঃ
ঘরকে টিকটিকিদের জন্য অযোগ্য করে তুলুন। টিকটিকি এমন জায়গা পছন্দ করে যেখানে উষ্ণতা, জল এবং লুকানোর জায়গা থাকে। টিকটিকি যাতে ঘরে ঢুকতে না পারে সেদিকে একটু খেয়াল রাখলেই হবে।

ঘর সবসময় পরিষ্কার করে রাখুন এবং মেঝেতে কাপড়, খবরের কাগজ এবং বাক্সের স্তূপ না রাখার চেষ্টা করুন।
সর্বদা দেয়াল থেকে আসবাবপত্র ৬ ইঞ্চি দূরে রাখুন এবং দেয়ালে খুব বেশি ছবি ঝুলিয়ে রাখবেন না। কারণ টিকটিকি রাতে সক্রিয় থাকে এবং দিনের বেলা অন্ধকার এবং উষ্ণ জায়গায় লুকিয়ে থাকে। তারা বেছে নেয় দেওয়ালে টাঙানো ছবির ফ্রেম। রোজ ঘর ঝাড় দেওয়ার সময় ফ্রেম গুলো ঝাড়ুন। এরকম করতে থাকলে ওখানে লুকনো বন্ধ করে দেব।
বাড়ির তাপমাত্রা যতটা সম্ভব কম রাখুন, কারণ বাইরে ঠান্ডা হলে রাতে টিকটিকি আপনার বাড়িতে ঢুকে পড়ে।
যদি বাড়িতে ফুটো পাইপ থাকে, তাহলে তা অবিলম্বে ঠিক করুন, কারণ টিকটিকি আর্দ্র পরিবেশ পছন্দ করে।
বাড়ির পিছনের দিকের উঠোন এবং বহিরঙ্গন টিকটিকিদের জন্য অনুপযুক্ত করুন৷ আপনার বাড়ির এই অংশে যদি জল থাকে এবং পোকামাকড় তাড়ানোর জন্য লুকানোর জায়গা থাকে তবে তা টিকটিকিকে আকর্ষণ করতে পারে৷

আপনার মতামত লিখুন :