রিয়াদ ভাই সিনিয়র হলেও আমাকে সম্মান করেছে! আমার কথা শুনেছে : মেহেদী হাসান মিরাজ

বেকার জীবনবেকার জীবন
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  04:44 PM, 08 December 2022

৬৯ রানের মধ্যে ছয় উইকেট হারিয়ে দল যখন হাবুডুবু খাচ্ছিল তখন আবারো বাংলাদেশ দলের কান্ডারী হয়ে দাঁড়ালেন মেহেদী হাসান মিরাজ এবং মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ। দলের কঠিন বিপদের সময় শক্ত হাতে হাত ধরেছেন এই দুইজন।

যেখানে সিনিয়র ভাই রিয়াদকে নিয়ে ১৪৮ রানের রেকর্ড পার্টনারশিপ গড়েছেন। তাতে বিপর্যয় কাটিয়ে বাংলাদেশ দলের সংগ্রহ দ্বারা ২৭১ রান। পরপর দুদিন এমন নায়কোচিত পারফরমেন্সে পাদ-প্রদীপের আলোয় উঠে আসা। কেমন লাগছে এমন হিরো বনে যাওয়ায়?

৬৯ রানে ৬ উইকেট পরে যাবার পর তার আর রিয়াদের চিন্তা ভাবনা আর লক্ষ্য কি ছিল? তারা কতদুর যাবেন বলে যাত্রা শুরু করেছিলেন? কত রান করতে পারলে ভারতের সাথে লড়াই করা যাবে? মনে করেছিলেন?

এমন প্রশ্নের জবাবে রিয়াদ বলেন, “আমাদের আসলে ওইরকম কোন চিন্তা ছিল না। আমরা এমন ভেবে চিন্তে খেলিনি যে অত রান করতেই হবে। আসলে আমি আর রিয়াদ ভাই যখন জুটি গড়ি তখন রানের হিসেব কষে খেলার সুযোগ ও অবকাশ কিছুই ছিল না।

কারণ ৬৯ রানে ৬ উইকেটের পতন ঘটেছিল।” “রিয়াদ ভাই আর আমিই শুধু ছিলাম বাকি। আমরা তাই রান করার চেয়ে উইকেটে থাকতেই চেয়েছি। আমাদের লক্ষ্য ছিল আর উইকেট না দিয়ে যেন উইকেটে টিকে থাকতে পারি।

এর মধ্যে একটু একটু করে ছোট ছোট পার্টনারশিপ গড়ার চিন্তায়ও ছিল। আলহামদুল্লিাহ আমার আর রিয়াদ ভইয়ের পার্টনারশিপ অনেক ভাল হয়েছে।” ব্যাটিংয়ের সময় তার আর রিয়াদের মধ্যে কি কি কথা-বার্তা হয়েছে?

মিরাজের জবাব, “আমার আর রিয়াদ ভাইয়ের মধ্যে আসল কথা হয়েছে বল টু বল খেলার জন্য। অবস্থা বুঝে খেলার জন্য। কখনো রিয়াদ ভাই বলেছেন। আবার কোন সময় আমিও বলেছি। তিনি সিনিয়র হলেও আমার কথা শুনেছেন। সেই ছেট ছোট কথোপকোথনগুলো অনেক কাজে দিয়েছে।”

আপনার মতামত লিখুন :